বাংলাদেশের হুমায়ারা আর হৃদয় খান, স্কুলের বন্ধু। একসঙ্গে ওলেভেল করেছেন তারা। মধ্যখানে অনেক দিন তাদের মধ্যে কোন যোগাযোগ ছিল না। ২০১৬ সালে আবার তাদের মধ্যে যোগাযোগ শুরু হয়। এরইমধ্যে হুমায়রা পড়াশোনা করতে গিয়েছিলেন মালয়েশিয়ার মনাশ বিশ্ববিদ্যালয়ে। ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস বিষয়ে সেখান থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর করেছেন।

আর বিয়ের সিদ্বান্তে আসেন গত কয়েকদিন আগে। এরপর গত ১০ সেপ্টেম্বর ধানমন্ডিতে হুমায়রার বাবার বাসায় হৃদয় খানের সঙ্গে তাঁদের (হৃদয়-হুমায়ারা) আকদ হয়েছে। তার আগের দিন সন্ধ্যায় হয়েছে গায়ে হলুদ। আর হৃদয় খান গণমাধ্যমকে শুধু বলেছেন, ‘আমি বিয়ে করেছি।’ এর বাইরে আর কিছুই জানান নি।

তৃতীয় স্ত্রী হুমায়ারার সঙ্গে হৃদয় খান

এদিকে একটি সংবাদ মাধ্যম দাবি করছে হৃদয় খানের নতুন জীবনের জন্য শুভ কামনা জানিয়েছেন তার সাবেক স্ত্রী মডেল ও অভিনেত্রী সুজানা জাফর। ঐ সংবাদ মাধ্যমকে নাকি সুজানা বলেছেন, ‘যে যেভাবে ভালো থাকতে পারে, সেটাই আমি চাই। আমি চাই হৃদয় খান তার নতুন সংসারে সুখী হোক। তাদের জন্য অনেক অনেক শুভ কামনা রইল।’

প্রসঙ্গত এটা হৃদয় খানের তৃতীয় বিয়ে। এর আগে, ২০১০ সালের শুরুর দিকে পূর্ণিমা আকতার নামের এক নারীকে বিয়ে করেছিলেন এই সংগীতশিল্পী। তবে ৬ মাস পার হওয়ার আগেই ভেঙে যায় তাদের সেই সংসার। এরপর ২০১৪ সালে ভালোবেসে মডেল সুজানাকে বিয়ে করেন হৃদয় খান। তার সেই দ্বিতীয় বিয়েও স্থায়ী হয়নি। আড়াই বছর আগে হৃদয় খান ও সুজানার বিবাহ বিচ্ছেদ হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *